ডিজিটাল টেক্সটাইল মুদ্রণে রিএক্টিভ কালি ব্যবহারের উপযোগিতা

ডিজিটাল টেক্সটাইল মুদ্রক হিসাবে  আপনার করা মুদ্রণের মানটি আপনার গ্রাহকদের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ডিজিটাল টেক্সটাইল মুদ্রণ যন্ত্রগুলো থেকে ভালো মানের মুদ্রণ পাওয়ার জন্য আপনার এক ধরণের কালি দরকার যা আপনাকে সেই পছন্দসই মান সরবরাহ করতে পারে।

প্রচলিত টেক্সটাইল মুদ্রণ শিল্পে সাধারণত যেই কালি ব্যবহৃত হয় সেটাই রিএক্টিভ কালি। ডিজিটাল টেক্সটাইল মুদ্রক হিসেবে আপনিও অবশ্যই রিএক্টিভ কালির সুবিধা নিতে চাইবেন। রিএক্টিভ কালি কি ডিজিটাল টেক্সটাইল মুদ্রণের জন্য উপযুক্ত এবং কোন মুদ্রণ কালি আপনার মুদ্রণ প্রক্রিয়ার জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত সেটা আপনি কীভাবে বুঝবেন? রিএক্টিভ কালি এবং ডিজিটাল টেক্সটাইল মুদ্রকযন্ত্রে এই জাতীয় কালি ব্যবহারের সুবিধাগুলো এখান আমি বুঝিয়ে বলছি।

রিএক্টিভ কালি কী?

রিএক্টিভ কালির বিবিধ ব্যবহার রয়েছে এবং এর দ্বারা আপনি প্রাকৃতিক তন্তুর উপর মুদ্রণ করতে সক্ষম যার মাঝে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল সূতা। এছাড়াও সিল্ক, উল এবং ভিসকোজে মুদ্রণের সময় রিএক্টিভ কালি আপনি ব্যবহার করতে পারেন।

প্রচলিত মুদ্রণে ব্যবহৃত পেস্টের রাসায়নিক পদার্থগুলোর সাথে এই কালি রিএক্ট বা প্রতিক্রিয়া করে বলেই এর নামকরণ করা হয়েছে রিএক্টিভ কালি। টেক্সটাইলগুলো যখন বাষ্পায়ন করা হয়, তখন এই রাসায়নিক প্রতিক্রিয়ার মাধ্যমে রঙের অণুগুলো কাপড়ের তন্তুর সাথে মিশ্রিত হয়।

নানাবিধ  ব্যবহারের পাশাপাশি রিএক্টিভ কালি ব্যবহারের দুটি গুরুত্বপূর্ণ সুবিধা রয়েছে। প্রথমটি হ'ল সূতা বা ভিসকোজে মুদ্রণের সময় রিএক্টিভ কালি উচ্চ মানের রঙ নিশ্চিত করে  এবং দ্বিতীয়টি হল হাই ওয়াশ ফাস্টনেস।

বিশেষ করে শীর্ষ স্তরের ফ্যাশন ব্র্যান্ডগুলোর জন্য হাই ওয়াশ ফাস্টনেস খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারণ এর অর্থ হল কাপড়গুলো বার বার ধোয়ার পরও মুদ্রণের রঙ হারায় না।

রিএক্টিভ কালি কেন ডিজিটাল টেক্সটাইল মুদ্রণের জন্য উপযুক্ত?

বিশেষত ডিজিটাল টেক্সটাইল প্রিন্টারগুলোর মধ্যে, রিএক্টিভ কালি খুবই জনপ্রিয়। এটি ডিজিটাল টেক্সটাইল মুদ্রণের উদ্দেশ্যে তৈরি প্রথম কালি। এই ধরণের কালি ডিজিটাল টেক্সটাইল প্রিন্টিংয়ের জন্য খুব উপযোগী কারণ এর অণুগুলি খুব ছোট হওয়ায় কালির ফোঁটাগুলো ইঙ্কজেটের মধ্য দিয়ে সহজে চলাচল করতে পারে।

রিএক্টিভ কালি সূতার মতো প্রাকৃতিক তন্তুতে মুদ্রণের জন্য খুবই উপযুক্ত, যা টেক্সটাইল মুদ্রণ শিল্পে সর্বাধিক ব্যবহৃত ফ্যাব্রিক। তাই ডিজিটাল টেক্সটাইল প্রিন্টারগুলির জন্য এক ধরণের কালি সহজলভ্য থাকা অত্যন্ত প্রয়োজনীয় যার মাধ্যমে হাই ওয়াশ ফাস্টনেস সহ উচ্চমানের মুদ্রণ করা যায়। ডিজিটাল রিএক্টিভ কালি তাদের সেই সুযোগ করে দেয়।

প্রচলিত মুদ্রণের রিএক্টিভ মুদ্রণ পেস্টের সাথে ডিজিটাল মুদ্রণের রিএক্টিভ কালির মধ্যে প্রধান পার্থক্যটি  হল ফ্যাব্রিকটিতে প্রয়োগ করা রাসায়নিকগুলো যা ফ্যাব্রিকের সাথে রঙকে মিশ্রিত করতে সাহায্য করে। প্রচলিত মুদ্রণে, সেই রাসায়নিকগুলি মুদ্রণের পেস্টেরই একটি অংশ যেখানে রঙটিও রয়েছে তবে এই রাসায়নিকগুলোর অণু বড় হওয়ায় এটি একটি ঘন পদার্থ যা একটি ইঙ্কজেটের অগ্রভাগ দিয়ে স্প্রে করা যায় না যা পর্যাপ্ত রেজোলিউশন এবং ডিটেইলের জন্য প্রয়োজনীয়। তাই রাসায়নিকগুলো মুদ্রণের আগে একটি পৃথক প্রক্রিয়ায় প্রয়োগ করা হয়, যাকে বলা হয় প্রিট্রীটিং।

প্রিট্রীট্মেন্টের সময় যে পদার্থটি ব্যবহৃত হয় তাতে রঙিন অণুগুলিকে পরে ফ্যাব্রিকের সাথে মিশ্রিত করার জন্য প্রয়োজনীয় সমস্ত রাসায়নিকগুলো থাকে। সাধারণত স্টেন্টারের সামনে (কাপড় শুকানোর জন্য) একটি কেমিকেল বাথের মধ্যে কাপর মুড়িয়ে প্রিট্রীটমেন্ট করা হয়। কিছু ব্যবহারকারী এক্ষেত্রে স্ক্রিন কোটিং পছন্দ করেন। রাসায়নিকগুলো তখন ফ্যাব্রিকের উপরে থাকে, ফলে পুরোটা রঙই সেখানেই থাকে। খুব উজ্জ্বল নেকটাই ছাপানোর জন্য এটা খুবই আকর্ষণীয়, যেখানে রঙের গভীরতা নয় বরং উজ্জ্বলতা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

কখন রিএক্টিভ কালি ব্যবহার করতে হবে এবং কখন অন্যান্য কালি ব্যবহার করতে হয়?

যদি এটি ১০০% সুতি বা ভিসকোজ হয় তবে রিএক্টিভ কালি হল পছন্দসই সমাধান। মূলত দামের কারণে প্রচলিত মুদ্রণে প্রায়ই কম উজ্জ্বল কাপড়ে রঞ্জক ব্যবহৃত হয়। আমি পরে ডিজিটাল রঞ্জকগুলো নিয়ে একটি বিশেষ ব্লগ করব, তবে সংক্ষেপে বলা যায় যে, রিএক্টিভের চেয়ে সস্তা কোনও নির্ভরযোগ্য ডিজিটাল রঞ্জক সমাধান নেই।

আপনি যদি সিল্ক বা উলের কাপড়ে মুদ্রণ করতে চান তবে আপনাকে ফ্যাব্রিকের ব্যবহার বিবেচনায় নিতে হবে। এটি কি এমন একটি ফ্যাব্রিক যা খুব ঘন ঘন ধুতে হবে আবার যার কারণে মুদ্রণের মান খুব দ্রুত হ্রাসও পাওয়া যাবে না? তাহলে রিএক্টিভ কালিই আপনার ব্যবহারের জন্য সর্বোত্তম পছন্দ।

তবে, আপনি যদি এমন কাপড়ে মুদ্রণ করেন যার জন্য উচ্চ মানের প্রাণবন্ত রঙের প্রয়োজন কিন্তু খুব ঘন ঘন ধোওয়া হয় না (যেমন স্কার্ফ বা টাই) তবে অ্যাসিড কালি আপনার ব্যবহারের জন্য আরও বেশি উপযুক্ত। বিভিন্ন ধরণের কালি সম্পর্কে আরও জানতে চাইলে টেক্সটাইল মুদ্রণ কালি সম্পর্কে আমার নিবন্ধটি পড়তে পারেন।

ডিজিটাল টেক্সটাইল মুদ্রণে রিএক্টিভ কালি ব্যবহারের প্রতিকূলতা

ডিজিটাল টেক্সটাইল মুদ্রণে রিএক্টিভ কালি ব্যবহারের অনেক সুবিধা থাকলেও, রিএক্টিভ কালি ব্যবহার করার সময় ডিজিটাল প্রিন্টারের একটি সমস্যার সম্মুখীন হয়। সমস্যাটি হল চূড়ান্ত গভীর কালো তৈরি করা নিয়ে। ডিজিটাল টেক্সটাইল মুদ্রণ চালু হওয়ার পর থেকে এর কালো রঙটি দেখতে ছিল অ্যানথ্র্যাসাইট ধূসর বর্ণের। সবসময় উদ্দেশ্যটি ছিল একটি কালো ধরণের কালো রঙের উদ্ভব করা।

ভিএস কালি বা ভিনল সুফোন কালি, এক ধরণের কালি যা শক্তিশালী রঙ তৈরী করে কিন্তু ধোয়া এবং বাষ্পায়ন প্রক্রিয়ায় এর স্থায়িত্ব বজায় রাখা কঠিন হয়ে পড়ে। বাষ্পায়ন প্রক্রিয়াটিতে যদি আপনার পর্যাপ্ত নিয়ন্ত্রণ না থাকে তবে কালো ভিএস কালি বাদামি এমনকি গোলাপী রঙয়ে পরিণত হতে পারে। এমসিটি বা মনোক্লোর- ট্রায়াজাইন কালি, ভিএস-এর তুলনায় ব্যবহার করা আরও সহজ তবে কিছুটা কম গভীর কালো রঙ তৈরি করে।

ব্যবহৃত কালি আপনার মুদ্রণের গুণগতমানের উপর একটি বিশাল প্রভাব রাখে। তাই, আপনার মুদ্রণের জন্য শুধুমাত্র সেরা কালিটিই ব্যবহার করা উচিত। তবে বিভিন্ন ধরণের কালি সহজলভ্য হওয়ায় মুদ্রণ প্রক্রিয়ায় কোনটি সবচেয়ে উপযুক্ত হবে তা নির্ধারণ করা কঠিন হয়ে পড়ে।

 

 

এই বিভাগের আরও খবর
যুক্তরাষ্ট্র থেকে এলো ব্রডগেজ ইঞ্জিনের প্রথম চালান

যুক্তরাষ্ট্র থেকে এলো ব্রডগেজ ইঞ্জিনের প্রথম চালান

নয়া দিগন্ত
পরমাণু সমঝোতাকে এগিয়ে নেওয়ার একমাত্র উপায় নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার ॥ ইরান

পরমাণু সমঝোতাকে এগিয়ে নেওয়ার একমাত্র উপায় নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার ॥ ইরান

নয়া দিগন্ত
নীতি কাঠামোয় জাফরুল্লাহ, ব্যক্তি খাতে স্যামসন-সালমান

নীতি কাঠামোয় জাফরুল্লাহ, ব্যক্তি খাতে স্যামসন-সালমান

নয়া দিগন্ত
প্রিমিয়ার লিজিংয়ের এমডির পদত্যাগ আটকে দিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক

প্রিমিয়ার লিজিংয়ের এমডির পদত্যাগ আটকে দিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক

নয়া দিগন্ত
বৈদেশিক মুদ্রার রেকর্ড রিজার্ভ

বৈদেশিক মুদ্রার রেকর্ড রিজার্ভ

নয়া দিগন্ত
আর্থিক প্রতিষ্ঠানের লভ্যাংশ সংক্রান্ত কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নতুন নির্দেশনা

আর্থিক প্রতিষ্ঠানের লভ্যাংশ সংক্রান্ত কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নতুন নির্দেশনা

নয়া দিগন্ত
ট্রেন্ডিং
  • কমনওয়েলথে শীর্ষ ৩ জন অনুপ্রেরণামূলক নারী নেতার মধ্যে শেখ হাসিনার নাম

  • দুর্নীতি দমন কমিশনের নতুন চেয়ারম্যান নিযুক্ত হলেন মঈনুদ্দিন আবদুল্লাহ

  • কক্সবাজার থেকে ভাসান চরের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে ১,০৭৩ রোহিঙ্গা

  • বীমা সুবিধাগুলি সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ান: কোম্পানিগুলোকে প্রধানমন্ত্রী

  • কোভিড-১৯: বাংলাদেশে আরও ৮ জনের মৃত্যু, ৩৮৫ জন নতুন আক্রান্ত

  • আজকের বাংলাদেশ এক বদলে যাওয়া বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী

  • কোভিড-১৯ টিকা: ৭ এপ্রিল থেকে দ্বিতীয় ডোজ শুরু হতে পারে, বলছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • ২৪ মে খুলছে বিশ্ববিদ্যালয়, হল খুলছে ১৭ মে

  • ভাষা আন্দোলন স্বাধীনতার পথ সুগম করেছে: প্রধানমন্ত্রী

  • খাদ্যে ভেজালকারীদের কঠোর হাতে দমন করা হবে । প্রধানমন্ত্রীর হুঁশিয়ার